Writing

আলী (রা:) ফাতিমা (রা:) ভালোবাসা থেকে মৃত্যুর বেদনা পর্যন্ত

যে প্রসঙ্গে আজ বলতে যাচ্ছি তা কয়েকটি ভিন্ন আবেগের সংমিশ্রণ। আলোচনা করছি আলী ও ফাতিমার জীবন নিয়ে, হে আল্লাহ আপনি তাদের উভয়ের প্রতি সন্তুষ্ট হন। তাদের দুজনের মানবতা, দাম্পত্য জীবনের সংগ্রাম, এবং জীবনের কিছু কঠিন পরিস্থিতি এই আলোচনায় উঠে আসবে। ঐ পরিস্থিতি গুলোতে রাসুল (ﷺ) তাঁদের কিভাবে সান্তনা দিয়েছেন, যত্ন সহকারে অভিভাবকত্ব করেছেন, পরিশেষে রাসুল (ﷺ) এবং ফাতিমা (রা:) এর মৃত্যু, এবং এর ভেতর দিয়ে মানবিক যে সংবেদনশীলতা তাই ফুটে উঠবে এই আলোচনায়।

উভয়ই যখন রাসুল (ﷺ) এর ভালোবাসার প্রত্যাশী:

প্রথমেই শুরু করা যাক রাসুল (ﷺ) এর ভালোবাসা দিয়ে। সবাই তাঁর ভালোবাসার প্রত্যাশী ছিল, সবাই জানতে চাইত রাসুল (ﷺ) কাকে বেশি ভালোবাসেন?
হাদিসে প্রায় দেখবেন, লোকজন রাসুল (ﷺ) কে জিজ্ঞেস করতেন, “আপনি কাকে বেশি ভালবাসেন?”
চিন্তা করতে পারেন, আলী এবং ফাতিমা দুজনেই রাসুল (ﷺ) এর কাছে এসে জিজ্ঞেস করেছিলেন, “আমাদের দুজনের মধ্যে আপনি কাকে বেশি ভালবাসেন?
আল আব্বাস, আলী এবং উসামা ইবনে যাইদ একবার রাসুল (ﷺ) কে জিজ্ঞেস করেছিলেন তিনি কাকে বেশি ভালোবাসেন। তখন রাসুল (ﷺ) উত্তর দিয়েছিলেন “ফাতিমাকে”, কিন্তু এখন আলী এবং ফাতেমা দুজনেই রাসুল (ﷺ) কে জিজ্ঞেস করছেন, “আমাদের দুজনের মধ্যে আপনি কাকে বেশি ভালবাসেন?”
আপনার কি মনে হয়?
রাসুল (ﷺ) তখন কি উত্তর দিয়েছিলেন?

আপনার সন্তানরা যখন আপনাকে জিজ্ঞেস করেন, “আপনি কাকে বেশি ভালবাসেন?”
আপনি তখন উত্তর দিতে গিয়ে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হন। তাই না?
রাসুল (ﷺ) কিন্তু খুব সুন্দর বাকপটু উত্তর দিয়েছিলেন। তিনি তো মিথ্যে বলতে পারেন না। তাঁর হৃদয় জুড়ে আছেন ফাতিমা (রা:), তিনি সত্যিই ফাতেমাকে ভালোবাসেন। তাঁর অন্তরে ফাতেমার জন্য রয়েছে বিশেষ স্থান। কিন্তু তিনি এমনভাবে প্রশ্নের উত্তর দিতে চাননি যা আলীকে আঘাত করবে। আলী (রা:) কে তিনি নিজ সন্তানের মতই মানুষ করেছেন, এবং ভালোবেসেছেন। আলী (রা:) একাধারে তাঁর চাচাতো ভাই, মদিনায় ভ্রাতৃ স্থানীয়, এবং তাঁর সন্তান তুল্য।

তাঁর জীবনে আলীর ভূমিকাও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কাজেই দুজনেই তখন তাঁকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, “আমাদের দুজনের মধ্যে আপনি কাকে বেশি ভালবাসেন?”
রাসুল (ﷺ) তখন আলীর দিকে তাকিয়ে বলেছিলেন, هِيَ اَحَبُّ اِلَيَّ مِنْك وَاَنْتَ اَعَزُّ عَلَيَّ مِنْهَا, সত্যিই খুব সুন্দর উত্তর! هِيَ اَحَبُّ اِلَيَّ مِنْك – “সে (ফাতিমা) আমার কাছে তোমার চেয়ে বেশি প্রিয়”, وَاَنْتَ اَعَزُّ عَلَيَّ مِنْهَا – “কিন্তু তুমি আমার কাছে তাঁর চেয়ে বেশি মূল্যবান।”

রাসুল (ﷺ) এমন ভাবে উত্তর দিয়েছিলেন যাতে দুজনেই কিছুটা গর্ব বোধ করতে পারেন। “আমার কাছে তোমার মূল্য বেশি, কিন্তু তাঁর প্রতি আমার ভালোবাসা বেশি।” তিনি যখন আলী (রা:) কে বলেছিলেন, “তুমি আমার কাছে বেশি মূল্যবান” অবশ্যই কথাটির কিছু অন্তর্নিহিত অর্থ আছে।

ফাতিমা (রা:) কে তিনি বলেছিলেন, “তুমি আমার কাছে বেশি প্রিয়” – সত্যিকার অর্থেই তিনি ফাতিমা (রা:) কে ভালোবাসতেন।

চলবে, ইন শা আল্লাহ

ড: শেখ ওমর সুলাইমান

লিখেছেন

ফাহমিনা হাসানাত

ফাহমিনা হাসানাত

কিছুটা লেখালেখি করি, ইসলামিক লাইনে কিছুটা পড়াশোনা করি। তাজউইদ, গ্রামার এবং কুরআন মেমোরাইজেশন এর ক্লাস করছি আলহামদুলিল্লাহ।
নিজে শিখছি, অন্যকেও শিখাচ্ছি। লেখালেখিটাও ঠিক এরকম। নিজে জানার জন্য মনের আনন্দে লিখি, শেয়ার করি।

লেখকের অন্যান্য সকল পোষ্ট পেতে ঘুরে আসুন

কিছুটা লেখালেখি করি, ইসলামিক লাইনে কিছুটা পড়াশোনা করি। তাজউইদ, গ্রামার এবং কুরআন মেমোরাইজেশন এর ক্লাস করছি আলহামদুলিল্লাহ।
নিজে শিখছি, অন্যকেও শিখাচ্ছি। লেখালেখিটাও ঠিক এরকম। নিজে জানার জন্য মনের আনন্দে লিখি, শেয়ার করি।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Islami Lecture