Writing

কারো উপকার করলে মনে এক অন্যরকম প্রশান্তি মিলে

একজন বৃদ্ধ ফল বিক্রি করেন,
তার কাছে সবসময় ভালো ভালো ফলমূল পাওয়া যায় ন্যায্য মূল্যে। তিনি ভালো বাগানি থেকে প্রতিদিন পায়কারিতে কিনে পিঠে করে নিয়ে আসে। যা খারাপ বলার মত সুযোগ কারো নেই।

একদিন এক ছেলে রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে আপেল কিনতে এলো। বলল, দশটি আপেল প্যাক করে দিতে।

এবং সে চাইলো বৃদ্ধার সামনেই একটা খেয়ে দেখবে।
যেই ভাবা সেই কাজ। কিন্তু ছেলেটি আপেল এক কামড় খেয়েই বাকিটা রেখে দশটি আপেলের টাকা পরিশোধ করে নয়টি আপেল নিয়ে চলে গেলো।

এভাবে প্রতিদিন ছেলেটা আসতো। একদিন একরকম ফল কিনতো, কিছুটা খেয়ে দেখতো কিন্তু শেষ না করে সেটা রেখে যেতো। আর সেটা সহ বাকিগুলোর টাকা দিয়ে বাকিটা নিয়ে যেতো।

প্রতিদিন একই ঘটনা খেয়াল করলো ছেলেটির বন্ধু, জিগ্যেস করলো একই কাজ কেন করে। বৃদ্ধার ফল সব নিঃসন্দেহে অনেক মজা সবাই জানি। তবে কেন টেস্ট করে আর না খেয়ে কেন নষ্ট করে?

ছেলেটি তখন মুচকি হেসে বলল, আমি প্রায়ই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় দেখতাম বৃদ্ধা ফলের দিকে তাকিয়ে আছে। কিন্তু কখনো একটি ফল ছুঁয়েও দেখেনি। বৃদ্ধা নিজে রোজগার করে আমি তাকে দিতে চাইলে তার আত্মসম্মানে লাগতে পারে।

তাই আমি প্রতিদিন একটি করে ফল নষ্ট করি যাতে সে বিক্রি না করতে পেরে খেয়ে নেয়।
শুনে বন্ধু খুব খুশি হয় আর খুশিতে বলে “বন্ধু” তুই সেরা!

কিছু সময় উপকার করতে চাইলে আড়ালেও করা যায়। কারো উপকার করলে মনে এক অন্যরকম প্রশান্তি মিলে।

লিখেছেন

সুরাইয়া আক্তার সুরভী

সুরাইয়া আক্তার সুরভী

লেখিকা, উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী,
মা ডেয়রিসের “মা”

লেখকের অন্যান্য সকল পোষ্ট পেতে ঘুরে আসুন
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Islami Lecture