Writing

ব্যবসায়ীদের মিথ্যাচার

অনেক ব্যবসায়ী তাদের পণ্য বিক্রির সময় মিথ্যা কথা বলাকে ফ্যাশন বানিয়ে ফেলেছেন। পণ্যের দাম বলার সময় প্রথমে তারা এমন কথা বলেন, শেষে বলেন আরেক কথা। এই কাজটি সবচেয়ে বেশি করেন কাপড়ের ব্যবসায়ী।

মনে করুন, একটি কাপড়ের দাম একজন ব্যবসায়ী বললেন ৩৫০০ টাকা। আপনি ক্রেতা হিশেবে বললেন ১৩০০ টাকা। আপনার দাম শুনে বিক্রেতা প্রথমেই বলবে, “এই দামে তো আমি কিনতেই পারি নি!” তারপর আপনাকে দাম বাড়াতে বলবে। কিন্তু, আপনি আর এক টাকাও বাড়াচ্ছেন না। আপনার হাতে ধরবে, কাপড়টি আরেকবার দেখাবে। সে বলবে, “১৫০০/২০০০ টাকা দিয়ে আমিও কিনতে পারি নি।”

অনেক অনুরোধের পরও যখন দেখবে আপনি দাম আর বাড়াচ্ছেন না, চলে যাচ্ছেন, তখন দেখা যাবে সে কাপড়টি আপনাকে দিয়ে দেবে। দেবার সময় বলবে, “এই কাপড়ে লাভ করতে পারলাম না!” অথচ সে ঠিকই লাভ করেছে, হতে পারে সেটা খুব অল্প।

কাপড় বিক্রি করতে গিয়ে সে বড়ো ধরণের দুটো মিথ্যা কথা বললো।
আপনার বলা দামকে সে বললো তার কেনা দামই না।
লাভ করা সত্ত্বেও বিক্রি করার সময় সে বললো লাভ করতে পারেনি।

এছাড়াও কাপড়ের মান, কোথায় থেকে কেনা হয়েছে এসব নিয়ে তো থাকে অজস্র মিথ্যাচার। মিথ্যা কথা কেনো বলা হয়? ক্রেতাকে ধোঁকা দেবার জন্য।
অনেকেই তো আবার ‘আল্লাহর কসম’ করে মিথ্যা কথা বলে যাতে ক্রেতা তার কথাকে বিশ্বাস করে!
ইসলামে এমন কাজকে খুবই গর্হিত কাজ হিশেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এভাবে মানুষকে ধোঁকা দিয়ে, আল্লাহর নামে কসম করে মিথ্যাচার করতে নিষেধ করা হয়েছে।

রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) একটি হাদীসে বলেন, “কিয়ামতের দিন আল্লাহ তিন শ্রেণীর লোকদের সাথে কথা বলবেন না।”
তাদের মধ্যে এক শ্রেণী হলো সেইসব ব্যবসায়ী, যারা আল্লাহর নামে কসম করে বলে পণ্য এতো টাকা দিয়ে কিনেছে (কিন্তু সে এতো টাকা দিয়ে কিনেনি)। ফলে ক্রেতা তাকে বিশ্বাস করে পণ্যটি কিনে নেয়।
[সহীহ বুখারী: ২৬৭২]

এই ধরণের কাজ আমরা অনেক ব্যবসায়ী, সেলসম্যানের মধ্যে দেখতে পাই। রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তাদের ব্যাপারে কঠোর হুঁশিয়ারি ঘোষণা করেছেন।
আরেকটি হাদীসে রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) ব্যবসায়ীদের সতর্ক করে বলেন:
“কিয়ামতের দিন ব্যবসায়ীদের ফাসিক বা গুণাহগাররূপে উঠানো হবে; কিন্তু তারা বাদে, যেসব ব্যবসায়ী আল্লাহকে ভয় করে, নির্ভুলভাবে কাজ করে এবং সততা ধারণ করেন।”
[জামে আত-তিরমিজি: ১২১০]

ছোটো-বড়ো, অনলাইনে-অফলাইনে যতো ব্যবসায়ী আছেন,

তাদের জন্য ইসলামের এমন সতর্কবাণী মেনে চলা অপরিহার্য। মানুষকে ধোঁকা দিয়ে ব্যবসা করলে দুনিয়াতে হয়তো লাভবান হওয়া যাবে, কিন্তু আখিরাতে হয়তো তলাবিহীন ঝুড়ির মতো আমলনামা হবে!

ইসলামের সৌন্দর্য (৩৭তম পর্ব)

আরিফুল ইসলাম

লিখেছেন

  • পড়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। তার কলম তাকে উজ্জীবিত করেছে স্বীয় বিশ্বাসের প্রাণশক্তি থেকে।
    অনলাইন এক্টিভিস্ট, ভালোবাসেন সত্য উন্মোচন করতে এবং উন্মোচিত সত্যকে মানুষের কাছে তুলে ধরতে।

    View all posts

Show More

Related Articles

Leave a Reply, if you have comments about this post.

Back to top button