Writing

সহজ জান্নাত হচ্ছে জান্নাতুল ফেরদৌসের মালিক হওয়া

পৃথিবীতে সবচেয়ে সহজ কাজগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি কাজ হচ্ছে জান্নাতুল ফেরদৌসের মালিক হওয়া।
কী, অবাক হলেন?
তাহলে শুনোন।
আপনি নিজেকে নিজে জিজ্ঞেস করে দেখুন তো, সে কি ভালো কাজকে পছন্দ করে নাকি খারাপ কাজকে পছন্দ করে? আমার ধারণা কোন পাগল লোকও কখনো খারাপ কাজকে পছন্দ করবে না। সবাই ভালো কাজকেই পছন্দ করেন। আর আল্লাহ তায়ালা বলেছেন,

إِنَّ الَّذِينَ آمَنُوا وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ كَانَتْ لَهُمْ جَنَّاتُ الْفِرْدَوْسِ نُزُلًا
যারা ইমান আনে এবং ভালো কাজ করে তাদের জন্যই রয়েছে জান্নাতুল ফেরদৌস।
[সূরা কাহাফ: ১০৭]

সুতরাং সবার কাছে পছন্দনীয় যে কাজ, সে কাজের অনুকূলেই জান্নাতের প্রবেশপথ। তাহলে আমি আমার পছন্দের কাজগুলো করেই তো দেখি জান্নাতে যেতে পারছি। এটা কি আমার জন্য আনন্দের বিষয় নয়?

উদাহরণ স্বরূপ; ধরুন, আপনি আজান দেওয়া কাজটাকে খুবই পছন্দ করেন। আজান দিতে চানও। কিন্তু এলাকার মসজিদে আপনাকে কখনো আজান দিতে দেয়া হয় না। মাসে কিংবা বছরে কোন একবার সুযোগ পেলে যারপরনাই আনন্দিত হয়ে তখন মনভরে আজান দেন।

এবার কিছুদিন পর হঠাৎ করেই সেই মসজিদে আপনাকে মুয়াজ্জিনের দায়িত্ব নিতে বলা হলো এবং এরজন্য আপনাকে প্রতি মাসে দশ হাজার টাকা হাদিয়াও দেয়া হবে বলে নির্ধারণ করা হলো। আচ্ছা বলুন তো, তখন কি আপনি আপনার খুশির পরিমাণটা বর্ননা করার জন্য উপযোগী কোন ভাষা খুঁজে পাবেন?
নিশ্চয়ই পাবেন না।
তাহলে ভালো কাজ করতে যেয়েও তো আমাদের যারপরনাই খুশি হওয়ার কথা। যেহেতু ভালো কাজ আমাদের সবারই পছন্দের।

একই ভাবে যদি প্রশ্ন করা হয় যে, আমরা কষ্টের কাজ করতে পছন্দ করি নাকি আরামের কাজ করতে পছন্দ করি? উত্তরে অবশ্যই প্রথমটার কথা কেউ বলবেন না। তাহলে এইবার চিন্তা করেন তো, ভালো কাজ করতে কষ্ট বেশি নাকি খারাপ কাজে? একটু ব্যাখ্যার প্রয়োজন।
বলুন তো জিনা করতে যেয়ে কষ্ট করতে হয় বেশি নাকি বিয়ে করে সহবাস করতে?

নেশা করতে যেয়ে কষ্ট বেশি নাকি নেশার টাকাটা একজন অসহায়ের মুখে হাসি ফুটাতে ব্যয় করায় কষ্ট করতে হয় বেশি?
মা বাবার অবাধ্য হতে হলে কতো কষ্ট। সর্ব মহলে কতো কথা শুনা লাগে, নিজের ভেতরেও কখনো খারাপ লাগে, কিন্তু তা চেপে রাখতে হয়। অথচ, তাদের বাধ্য হতে হলে একটু কাছে গেলেই যথেষ্ট। এতে তাদের আদরটাও কতো বেশি। তাহলে কোনটা বেশি কষ্টের, বাধ্য হওয়া নাকি অবাধ্য হওয়া?

প্রচলিত যে কোন হারাম একটা অনুষ্ঠান করতে গেলে কষ্ট বেশি নাকি সওয়াব হবে এমনভাবে একটা বিয়ের আয়োজনে কষ্ট বেশি?

সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করায় কষ্ট বেশি নাকি কুশিক্ষা পাওয়ার পর সেটা যখন সমাজে প্রয়োগ করে বেড়ায় আর মানুষের সামনে আপনার মাথা নিচু হয় তখন কষ্ট বেশি?
… এইভাবে বলতে থাকলে খুবই সামান্য কিছু কাজ ছাড়া বাকি সবগুলোই ভালোটার তুলনায় মন্দটাতে কষ্ট বেশি।
.
একটা কথা মনে রাখবেন, শুধু বড় বড় জোব্বা ওয়ালা হুজুররাই জান্নাতে যাবে আর আপনি শার্ট-প্যান্ট পড়েন বিধায় জান্নাতে যাবেন না এটা নেহাতই মিথ্যে কথা। আল্লাহ তায়ালার কাছে মানুষের সন্মান কমবেশি হওয়ার মাপকাঠি হচ্ছে তাকওয়া।
[সূরা হুজুরাত:১৩]

কিন্তু কথা হচ্ছে জান্নাত অর্জন করা যদি কষ্টকর না হয়ে আরামের হয়, এবং অপছন্দের কাজ ব্যাতিত পছন্দের কাজের মধ্যেই তা নিহিত থাকে, তাহলে মানুষ কেন জাহান্নামে যাবে?
মানুষ কি এতোই বোকা?
আসলে প্রশ্নটা আমারো। মানুষ কেন এতো বোকা?

তবে হ্যাঁ, আল্লাহ সুবহানাহু ওতায়ালা জাহান্নামকে যেহেতু তৈরি করেছেন এবং সেখানে মানুষ এবং পাথরকে ইন্ধন হিশেবে ব্যবহার করবেন সেহেতু কিছু মানুষ তো অবশ্যই জাহান্নামী হবে। হোক জাহান্নামী। তবে মুশরিক বেঈমানরা হোক।
মুসলমান হয়ে কেন আমরা জাহান্নামী হব?

লিখেছেন

  • মফস্বলে জন্ম, মফস্বলেই বেড়ে উঠা। লেখালেখি শখের একটি অংশ কেবল। তবুও দ্বীন নিয়ে লিখতে চাই সবটুকু দিয়ে। হতে পারে শখটা একদিন আকাশ ছুঁবে ইনশা আল্লাহ।
    যবে লুকাইব ভুবন ছাড়িয়া খুঁজিস না কেহ হে আপন,
    ভুলে যাইস তোরা আমারো কীর্তি মাটি খুঁড়িয়া দিস দাফন।

    View all posts

Show More

Related Articles

Leave a Reply, if you have comments about this post.

Back to top button