Quotes

বাথরুমে থাকা অবস্থায় আজান শুনলে কি আজানের উত্তর দিতে হবে

না, বাথরুমে থেকে আজানের উত্তর দেওয়া যাবেনা।

শুধু আজানের উত্তরই না, বাথরুমে সমস্ত প্রকার যিকির, দুয়া, দুরুদ ও কুরআন তেলাওয়াত নিষিদ্ধ। কারণ অপবিত্র জায়গায় আল্লাহর যিকির করা তাঁর সম্মান ও মর্যাদার পরিপন্থী।
তবে কেউ যদি বাথরুমে প্রবেশ করার দুয়া ও বের হওয়ার দুয়া পড়ে – ঐ সময়টা ইবাদতের মধ্যেই গণ্য হবে।
বাথরুমে প্রবেশ করার আগে দুয়াঃ

بِسْمِ اللهِ ‏اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنَ الْخُبُثِ وَالْخَبَائِثِ
বিসমিল্লাহ, আল্লাহুম্মা ইন্নি আ’উযুবিকা মিনাল খুবুসি ওয়াল খাবা-ঈসি।
অর্থঃ আল্লাহর নামে। হে আল্লাহ আমি তোমার কাছে অপবিত্র পুরুষ জিন ও অপবিত্র নারী জিন হতে আশ্রয় প্রার্থনা করছি।
[বুখারীঃ ১/৪৫, মুসলিমঃ ১/২৮৩]

বাথরুম থেকে বের হওয়ার দুয়াঃ

غُفْرَانَكَ.
উচ্চারণঃ গুফরা-নাকা।
অর্থঃ (হে আল্লাহ) আমি তোমার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।
[আবু দাউদ, তিরমিযী, ইবনে মাযাহ]

উল্লেখ্যঃ জিকির বলতে এখানে মুখে উচ্চারণ করে বা ঠোট নেড়ে আমরা নিয়মিত যে দুয়া সুবহা’নআল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ, বা আল্লাহুম্মা সাল্লি আ’লা…কে বুঝানো হয়েছে।
এটা নিষিদ্ধ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply, if you have comments about this post.

Back to top button