Quotes

বর্শি দিয়ে মাছ ধরা কি মাকরূহ?

মহান আল্লাহ নদী ও সাগরের সর্বপ্রকার মৎস্য মানুষের জন্য হালাল রিজিক হিসেবে দান করেছেন। মাছকে আল্লাহ মানুষের খাদ্য হিসাবে সৃষ্টি করেছেন। যেমন তিনি বলেন, ‘(লোনা ও মিঠা পানির দু’টি সমুদ্র থেকেই) তোমরা তাযা গোশত (মৎস্য) ভক্ষণ করে থাক… যাতে তোমরা তাঁর অনুগ্রহ সন্ধান করতে পার এবং যাতে তোমরা কৃতজ্ঞতা স্বীকার কর’।

وَمَا يَسْتَوِي الْبَحْرَانِ هَذَا عَذْبٌ فُرَاتٌ سَائِغٌ شَرَابُهُ وَهَذَا مِلْحٌ أُجَاجٌ وَمِن كُلٍّ تَأْكُلُونَ لَحْمًا طَرِيًّا وَتَسْتَخْرِجُونَ حِلْيَةً تَلْبَسُونَهَا وَتَرَى الْفُلْكَ فِيهِ مَوَاخِرَ لِتَبْتَغُوا مِن فَضْلِهِ وَلَعَلَّكُمْ تَشْكُرُونَ

দু’টি সমুদ্র সমান হয় না-একটি মিঠা ও তৃষ্ণানিবারক এবং অপরটি লোনা। ঊভয়টি থেকেই তোমরা তাজা গোশত (মৎস) আহার কর এবং পরিধানে ব্যবহার্য গয়নাগাটি আহরণ কর। তুমি তাতে তার বুক চিরে জাহাজ চলতে দেখ, যাতে তোমরা তার অনুগ্রহ অন্বেষণ কর এবং যাতে তোমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর।
সূরা ফাতির – Surah Fatir
(Ayah 12)


আল্লাহ তা’আলা বলেন,
.أُحِلَّ لَكُمۡ صَيۡدُ ٱلۡبَحۡرِ وَطَعَامُهُۥ مَتَٰعٗا لَّكُمۡ وَلِلسَّيَّارَةِۖ وَحُرِّمَ عَلَيۡكُمۡ صَيۡدُ ٱلۡبَرِّ مَا دُمۡتُمۡ حُرُمٗاۗ وَٱتَّقُواْ ٱللَّهَ ٱلَّذِيٓ إِلَيۡهِ تُحۡشَرُونَ

“তোমাদের জন্য সমুদ্রের শিকার ও তা খাওয়া হালাল করা হয়েছে, তোমাদের ও পর্যটকদের ভোগের জন্য। তোমরা যতক্ষণ ইহরামে থাকবে ততক্ষণ স্থলের শিকার তোমাদের জন্য হারাম। আর তোমরা আল্লাহর তাকওয়া অবলম্বন কর, যাঁর কাছে তোমাদেরকে একত্র করা হবে।”
Surah Al-Ma’idah,
Ayah 96

বরং আল্লাহ পৃথিবীর সবকিছুই মানুষের কল্যাণের স্বার্থে সৃষ্টি করেছেন। আল্লাহ বলেন

هُوَ الَّذِي خَلَقَ لَكُم مَّا فِي الأَرْضِ جَمِيعاً ثُمَّ اسْتَوَى إِلَى السَّمَاء فَسَوَّاهُنَّ سَبْعَ سَمَاوَاتٍ وَهُوَ بِكُلِّ شَيْءٍ عَلِيمٌ

তিনিই সে সত্ত্বা যিনি সৃষ্টি করেছেন তোমাদের জন্য যা কিছু জমীনে রয়েছে সে সমস্ত। তারপর তিনি মনোসংযোগ করেছেন আকাশের প্রতি। বস্তুতঃ তিনি তৈরী করেছেন সাত আসমান। আর আল্লাহ সর্ববিষয়ে অবহিত।

Surah Al-Baqarah,
Ayah 29


সুতরাং মানুষ বিভিন্ন কলাকৌশল প্রয়োগ এর মাধ্যমে সেগুলো ধরে খেতে পারে। আর মাছ ধরার ক্ষেত্রে বড়শির ব্যবহার অতি পরিচিত একটি পদ্ধতি।

সুতরাং এতে কোনো আপত্তি নেই ইনশাআল্লাহ।

তবে বিনা প্রয়োজনে শুধু বিনোদন বা টাইম পাস করার উদ্দেশ্যে বড়শি দিয়ে মাছ ধরা বৈধ নয়। কেননা এতে নিষ্প্রয়োজনে আল্লাহর সৃষ্টিকে কষ্ট দেওয়া হয়। কিন্তু যদি মাছ ধরার পরে সেগুলো যারা মানুষ উপকৃত হয় তাহলে তাতে কোন সমস্যা নেই।

Show More

Related Articles

Leave a Reply, if you have comments about this post.

Back to top button