শাইখ মোখতার আহমাদMuslim Scholar Bangla

Beware of coronavirus (Covid 19) or leave everything on God?

করোনা (coronavirus) থেকে সাবধান থাকবেন নাকি আল্লাহর উপর সব ছেড়ে দিয়ে বসে থাকবেন?

করোনা ভাইরাস (coronavirus) থেকে সুরক্ষায় সতর্কতা অবলম্বন করব নাকি আল্লাহ্‌ সুবহানাহু তায়ালার উপর তাওয়াক্কুল করে থাকব। আমাদের মাঝে অনেকেই এই কথা বলার চেষ্টা করছেন যে, যা আমাদের হওয়ার কথা তা তো হবেই

আল্লাহ্‌ সুবহানাহু তায়ালা বলেছেন,
أَيْنَمَا تَكُونُواْ يُدْرِككُّمُ الْمَوْتُ وَلَوْ كُنتُمْ فِي بُرُوجٍ مُّشَيَّدَةٍ وَإِن تُصِبْهُمْ حَسَنَةٌ يَقُولُواْ هَـذِهِ مِنْ عِندِ اللّهِ وَإِن تُصِبْهُمْ سَيِّئَةٌ يَقُولُواْ هَـذِهِ مِنْ عِندِكَ قُلْ كُلًّ مِّنْ عِندِ اللّهِ فَمَا لِهَـؤُلاء الْقَوْمِ لاَ يَكَادُونَ يَفْقَهُونَ حَدِيثًا
তোমরা যেখানেই থাক না কেন; মৃত্যু কিন্তু তোমাদেরকে পাকড়াও করবেই। যদি তোমরা সুদৃঢ় দূর্গের ভেতরেও অবস্থান কর, তবুও। বস্তুতঃ তাদের কোন কল্যাণ সাধিত হলে তারা বলে যে, এটা সাধিত হয়েছে আল্লাহর পক্ষ থেকে। আর যদি তাদের কোন অকল্যাণ হয়, তবে বলে, এটা হয়েছে তোমার পক্ষ থেকে, বলে দাও, এসবই আল্লাহর পক্ষ থেকে। পক্ষান্তরে তাদের পরিণতি কি হবে, যারা কখনও কোন কথা বুঝতে চেষ্টা করে না।
Wherever ye are, death will find you out, even if ye are in towers built up strong and high!” If some good befalls them, they say, “This is from Allah.; but if evil, they say, “This is from thee” (O Prophet). Say: “All things are from Allah.” But what hath come to these people, that they fail to understand a single fact?
সূরা নিসা
আয়াত ৭৮

যা লিখা আছে তাই তো হবে, অনেকেই এমনও বলছেন কোথাও করোনা ভাইরাস (Virus) এর রোগী যদি থাকে তাহলে আমাদেরকে দাওয়াত দিবেন আমরা তাদের সেবা করে দিব, আবার কেউ কেউ বলছেন তিনি যদি মারা যান আমাদের দাওয়াত দিবেন, আমরা তাকে গোসল করিয়ে দিব, আমরা তার দাফন কাফন এর ব্যবস্থা করিয়ে দিব।

ভাইরাসকে ভয় পাব নাকি আল্লাহ্‌কে ভয় পাব?

অনেকেই এই ভাবেই বিষয় গুলোকে মূল্যায়ন করতে চান, আবার কেউ কেউ এমন কথায়ও বলেন দেখেছি যে মুরুব্বীদের মাঝেও এমন কথা বলেন, আমরা ইসলামকে ভালবাসি practice করছি, অনেকেই এমন ভাবে বলতে চান, যে ভাইরাসকে ভয় পাব নাকি আল্লাহ্‌কে ভয় পাব?

আল্লাহ্‌কে ভয় করুন, ভাইরাস (Virus) কে ভয় করবেন না। এই ভাবে আমরা ভিবিন্ন কথা বলতে চাই, সব গুলু কথা সত্য কিন্তু আমাদেরকে বুঝতে হবে যে, এই গুলু কোন রোগ যদি আসে তাহলে সেটি যদি সংক্রামক কোন রোগ হয় তাহলে সেক্ষেত্রে শরীয়া মানদণ্ডকে আমাদেরকে তা বুঝতে হবে। কথাটা ওমর (রা.) এর সে জায়গা থেকে নেয়া দরকার যেটি অত্যন্ত বিখ্যাত একটা বর্ণনা

রাসুল (সাঃ) প্রিয়তম সাহাবী ওমর (রা.) সামে সিরিয়া থেকে গিয়েছেন এবং সেখানে তিনি যখন শোনলেন সেখানে সংক্রামক বা ভাইরাস (Virus) রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে তিনি আনসার, মুহাজির তাদের সাথে আলোচনা করেছেন, মদিনা লোকদের সাথে আলোচনা করেছেন এবং তারা প্রত্যেকে বলেছেন আপনারা এই খানে ডোকবেন না চলে যান, আবু উবাইদাহ ইবনে যারাহ দোড়ে এসে ওমর (রা.)কে বললেন, আপনি কি আল্লাহ্‌র তাকদীর থেকে পলায়ন করছেন, তিনি বললেন আল্লাহ্‌র তাকদির থেকে পলায়ন করছি না এক তাকদির থেকে অন্য জায়গায় যাচ্ছি। ফলে আমাদেরকে সতর্কতা অবলম্বন করা দরকার।

Beware of coronavirus (Covid 19) or leave everything on God?
Beware of coronavirus (Covid 19) or leave everything on God?

‘আবদুল্লাহ ইবনু ‘আব্বাস (রাঃ) হতে বর্ণিত যে, ‘উমার ইবনু খাত্তাব সিরিয়ার দিকে রওনা করেছিলেন। শেষে তিনি যখন সারগ এলাকায় গেলেন, তখন তাঁর সঙ্গে সৈন্য বাহিনীর প্রধানগণ তথা আবূ ‘উবাইদাহ ইবনু জার্রাহ ও তাঁর সঙ্গীগণ সাক্ষাৎ করেন। তাঁরা তাঁকে জানালেন যে, সিরিয়া এলাকায় প্লেগের বিস্তার ঘটেছে। ইবনু ‘আববাস বলেন, তখন ‘উমার বললঃ আমার নিকট প্রবীণ মুহাজিরদের ডেকে আন। তখন তিনি তাঁদের ডেকে আনলেন। ‘উমার তাঁদের সিরিয়ার প্লেগের বিস্তার ঘটার কথা জানিয়ে তাঁদের কাছে পরামর্শ চাইলেন।

তখন তাঁদের মধ্যে মতভেদের সৃষ্টি হল। কেউ বললেনঃ আপনি একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারে বের হয়েছেন; কাজেই তা থেকে প্রত্যাবর্তন করা আমরা পছন্দ করি না। আবার কেউ কেউ বললেনঃ বাকী লোক আপনার সঙ্গে রয়েছেন এবং রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সহাবীগণ। কাজেই আমরা সঠিক মনে করি না যে, আপনি তাদের এই প্লেগের মধ্যে ঠেলে দিবেন।

‘উমার (রাঃ) বললেনঃ তোমরা আমার নিকট থেকে চলে যাও। এরপর তিনি বললেনঃ আমার নিকট আনসারদের ডেকে আন। আমি তাদের ডেকে আনলাম। তিনি তাদের কাছে পরামর্শ চাইলে তাঁরাও মুহাজিরদের পথ অবলম্বন করলেন এবং তাঁদের মতই মতপার্থক্য করলেন।

‘উমার (রাঃ) বললেনঃ তোমরা উঠে যাও। এরপর আমাকে বললেনঃ এখানে যে সকল বয়োজ্যেষ্ঠ কুরাইশী আছেন, যাঁরা মক্কা জয়ের বছর হিজরাত করেছিলেন, তাদের ডেকে আন। আমি তাদের ডেকে আনলাম, তখন তাঁরা পরস্পরে মতভেদ করলেন না। তাঁরা বললেনঃ আপনার লোকজনকে নিয়ে প্রত্যাবর্তন করা এবং তাদের প্লেগের মধ্যে ঠেলে না দেয়াই আমরা ভাল মনে করি। তখন ‘উমার লোকজনের মধ্যে ঘোষণা দিলেন যে, আমি ভোরে সাওয়ারীর পিঠে আরোহণ করব (ফিরার জন্য)। অতএব তোমরাও সকালে সওয়ারীর পিঠে আরোহণ করবে।

আবূ ‘উবাইদাহ (রাঃ) বললেনঃ আপনি কি আল্লাহর নির্ধারিত তাকদীর থেকে পালানোর জন্য ফিরে যাচ্ছেন? ‘উমার (রাঃ) বললেনঃ হে আবূ ‘উবাইদাহ! যদি তুমি ব্যতীত অন্য কেউ কথাটি বলত! হাঁ, আমরা আল্লাহর, এক তাকদীর থেকে আল্লাহর আরেকটি তাকদীরের দিকে ফিরে যাচ্ছি। তুমি বলত, তোমার কিছু উটকে যদি তুমি এমন কোন উপত্যকায় নিয়ে যাও যেখানে আছে দু’টি মাঠ। তন্মধ্যে একটি হল সবুজ শ্যামল, আর অন্যটি হল শুষ্ক ও ধূসর। এবার বল ব্যাপারটি কি এমন নয় যে,

যদি তুমি সবুজ মাঠে চরাও তাহলে তা আল্লাহর তাকদীর অনুযায়ীই চরিয়েছ। আর যদি শুষ্ক মাঠে চরাও, তাহলে তাও আল্লাহর তাকদীর অনুযায়ীই চরিয়েছ। বর্ণনাকারী বলেন, এমন সময় ‘আবদুর রহমান ইবনু ‘আওফ (রাঃ) আসলেন। তিনি এতক্ষণ যাবৎ তাঁর কোন প্রয়োজনের কারণে অনুপস্থিত ছিলেন।
তিনি বললেনঃ এ ব্যাপারে আমার নিকট একটি তথ্য আছে, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে বলতে শুনেছিঃ তোমরা যখন কোন এলাকায় প্লেগের) বিস্তারের কথা শোন, তখন সেখানে প্রবেশ করো না। আর যদি কোন এলাকায় এর প্রাদুর্ভাব নেমে আসে, আর তোমরা সেখানে থাক, তাহলে সেখান থেকে বেরিয়ে যেয়ো না। বর্ণনাকারী বলেনঃ এরপর ‘উমার (রাঃ) আল্লাহর প্রশংসা করলেন, তারপর প্রত্যাবর্তন করলেন।
সহীহ বুখারী (তাওহীদ)
অধ্যায়ঃ ৭৬/ চিকিৎসা
হাদিস নম্বরঃ ৫৭২৯

একটা বিষয় আপনাদেরকে বলি, যখন আমরা যুদ্ধের ময়দানে যাই, তখন কি আমরা বলি শুধুমাত্র আল্লাহ্‌র তাওয়াক্কুল করে যাচ্ছি, নাকি আমরা আমাদের prepareation নিয়ে যাই।
আমাদের এই করোনা ভাইরাস (virus) থেকেও সতর্ক থাকা দরকার।

কুরআনে আল্লাহ্‌ তায়ালা কি বলেছেন,

وَأَعِدُّواْ لَهُم مَّا اسْتَطَعْتُم مِّن قُوَّةٍ وَمِن رِّبَاطِ الْخَيْلِ تُرْهِبُونَ بِهِ عَدْوَّ اللّهِ وَعَدُوَّكُمْ وَآخَرِينَ مِن دُونِهِمْ لاَ تَعْلَمُونَهُمُ اللّهُ يَعْلَمُهُمْ وَمَا تُنفِقُواْ مِن شَيْءٍ فِي سَبِيلِ اللّهِ يُوَفَّ إِلَيْكُمْ وَأَنتُمْ لاَ تُظْلَمُونَ
আর প্রস্তুত কর তাদের সাথে যুদ্ধের জন্য যাই কিছু সংগ্রহ করতে পার নিজের শক্তি সামর্থ্যের মধ্যে থেকে এবং পালিত ঘোড়া থেকে, যেন প্রভাব পড়ে আল্লাহর শুত্রুদের উপর এবং তোমাদের শত্রুদের উপর আর তাদেরকে ছাড়া অন্যান্যদের উপর ও যাদেরকে তোমরা জান না; আল্লাহ তাদেরকে চেনেন। বস্তুতঃ যা কিছু তোমরা ব্যয় করবে আল্লাহর রাহে, তা তোমরা পরিপূর্ণভাবে ফিরে পাবে এবং তোমাদের কোন হক অপূর্ণ থাকবে না।

Against them make ready your strength to the utmost of your power, including steeds of war, to strike terror into (the hearts of) the enemies, of Allah and your enemies, and others besides, whom ye may not know, but whom Allah doth know. Whatever ye shall spend in the cause of Allah, shall be repaid unto you, and ye shall not be treated unjustly.
সূরা আল-আনফাল
আয়াত নং ৬০

শুধুমাত্র তাওক্কুল করে থাকব?

আল্লাহ্‌ সুবহানাহু তায়ালা শুধুমাত্র তাওক্কুল এর কথা তিনি বলেন নাই, তিনি আমাদের কে বলেছেন

فَإِذَا قُضِيَتِ الصَّلَاةُ فَانتَشِرُوا فِي الْأَرْضِ وَابْتَغُوا مِن فَضْلِ اللَّهِ وَاذْكُرُوا اللَّهَ كَثِيرًا لَّعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ
অতঃপর নামায সমাপ্ত হলে তোমরা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড় এবং আল্লাহর অনুগ্রহ তালাশ কর ও আল্লাহকে অধিক স্মরণ কর, যাতে তোমরা সফলকাম হও।
And when the Prayer is finished, then may ye disperse through the land, and seek of the Bounty of Allah. and celebrate the Praises of Allah often (and without stint): that ye may prosper.
সূরা আল জুমুআহ
আয়াত নং ১০

আল্লাহ্‌ সুবহানাহু তায়ালা আমাদের উপর কার্য কারণ গ্রহন করা এবং ছড়িয়ে পরা এবং অবলম্বন করা তিনি আমাদের জন্য ফরজ করে দিয়েছেন।

আনাস ইবনু মালিক (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, কোন একজন লোক বললো, হে আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম! আমি কি সেটা (উট) বেঁধে রেখে আল্লাহ তা’আলার উপর ভরসা করবো, না বাধন খুলে রেখে আল্লাহ্ তা’আলার উপর ভরসা করবো?
তিনি বললেনঃ তুমি সেটা বেঁধে রেখে (আল্লাহ্ তা’আলা উপর) ভরসা করবে।
হাসানঃ তাখরাজুল মুশকিলাহ (২২)।
ইয়াহইয়া বলেন, আমার মতে এই হাদিসটি মুনকার। আবু ঈসাবলেন, এই হাদীসটি আনাস (রাঃ)-এর বর্ণনা হিসাবে গারীব। শুধুমাত্র উপরোক্ত সূত্রেই আমরা এই হাদীসটি জেনেছি। আমর ইবনু উমাইয়্যা (রাঃ)-এর সূত্রে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হতে উপরোক্ত হাদীসের মতো হাদীস বর্ণিত হয়েছে।
সূনান আত তিরমিজী
হাদিস নম্বরঃ ২৫১৭

তার মানে হচ্ছে বেধে রাখা এটাই তাওাক্কুল এর অংশ আমরা কিন্তু কেউ এই কথা বলি না, যে আমি ঘরে বসেই থাকব এবং আমার কাছে রিজিক আসবে আমরা কিন্তু প্রত্যেকে কাজ করি।

وَأَن لَّيْسَ لِلْإِنسَانِ إِلَّا مَا سَعَى
এবং মানুষ তাই পায়, যা সে করে,
That man can have nothing but what he strives for
সূরা আন-নাজম
আয়াত ৩৯

Source
Quran.comHadith bd
Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close