Quotes

হানাফী মাজহাব কবে প্রতিষ্ঠিত

হানাফী মাজহাব কি ইমাম আবু হানীফার মৃত্যুর চারশত ( ৪০০) বছর পর প্রতিষ্ঠিত?

অনেকগুলো প্রোপাগাণ্ডা আর মিথ্যা ছড়ানো হয়েছে। আল্লাহ তাদেরকে ক্ষমা করুক। এরকম আজগুবি / অসঙ্গতিপূর্ণ অনেক প্রশ্ন পেয়ে খুব বিব্রত হচ্ছি।
কেননা, এসব মিথ্যা-বানায়োটি তথ্য ছড়াচ্ছেন একদল স্কলার/দায়ী ব্যক্তিবর্গ, যাদের অন্ধ অনুসারীগণ না বুঝে / না পড়ে / না জেনে চোখ বন্ধ করে উম্মাহের শ্রেষ্ট সালাফদের প্রতি কুৎসা রটাচ্ছেন। আল্লাহ এসব অবুঝ বান্দাদের ক্ষমা করুক !

এই প্রশ্নটা প্রায়ই আমি পেয়ে থাকি যে –
” হানাফী মাজহাব ইমামে আজমের মৃত্যুর ৪০০ বছর পর প্রতিষ্ঠিত । “
আবার এই প্রশ্নটাকে অনেকেই ঘুরিয়ে আরেক অর্থে বলেন যে –
” আবু হানীফার মৃত্যু ১৫০ হিজরীতে আর হানাফী মাজহাব প্রতিষ্ঠিত ৪০০ হিজরীর পরে “
প্রশ্ন দেখেই বাহ্যত বুঝা যায় যে, হানাফী মাজহাব আর ইমামে আবু হানফীরা সাথে কোন সম্পর্ক নাই। যেহেতু, মাঝখানে বিশাল একটা সময়ের তফাৎ রয়েছে। এটা একটা সহীহ ব্লাক মেইল ধরা যায়!!
আসলেই কি তাই??
আজ বিষয়টা ক্লিয়ার করবো ইনশা আল্লাহ ।


উত্তরঃ- মূল লেখাটা পড়ার আগে একটা বিষয় বুঝতে হবে যে, মাজহাব প্রতিষ্ঠা বলতে কি বুঝায় ??

মাজহাব প্রতিষ্ঠা বলতে কি বুঝায়?


মাজহাব প্রতিষ্ঠা বলতে দু’টা বিষয় বুঝায় –
১. কোর’আন হাদীস থেকে মাসালা-মাসাইল বর্ণনার পদ্ধতি ও মূলনীতি সর্বস্ব জ্ঞান বিদ্যমান থাকা।
২. মাজহাবের ইমামের ছাত্র থাকা, মাজহাবের বই পুস্তক থাকা, অতঃপর মাজহাবটা মানুষের মাঝে ব্যাপক প্রচার পাওয়া। ধীরে ধীরে মাজহাবটা অনুসরণীয় হয়ে উঠা।
আর এভাবেই একটা মাজহাব প্রতিষ্ঠিত হয়ে থাকে। তন্মধ্যে, গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো – মাজহাবের নির্ধারিত মাসালা-মাসাইল ও উসূলের বই-পুস্তক থাকা।

হানাফী মাজহাবের প্রচার-প্রসার কবে থেকে শুরু হয়েছে?


এবার আমরা জানবো যে, তাহলে হানাফী মাজহাবের বই-পুস্তক বা প্রচার-প্রসার কবে থেকে শুরু হয়েছে?

যদি দেখা যায়, সত্যি ইমামে আজমের মৃত্যুর ৪০০ বছর হানাফী মাজহাবের বই লিখা হয়েছে, তবে ধরে নিব উপরোক্ত প্রশ্ন সত্য।
ইমাম আজম আবু হানীফা রাঃ মৃত্যু বরণ করেন ১৫০ হিজরীতে৷ তিনি অসংখ্য ছাত্র রেখে যান, তন্মধ্যে উল্লেখ্য তিন জন ছিলেন –
১. ইমাম আবু ইউসুফ
২. ইমাম মুহাম্মাদ
৩. ইমাম জুফার
( রাহিমাহুমুল্লাহ )

ইমাম আজম রাঃ হানাফী মাজহাবের মাসাইল, মূলনীতি ইত্যাদি উনার ছাত্রদের কাছে শিক্ষা দান করেন। তবে সেই সময়ে লেখালেখির প্রচলন না থাকায় ইমাম আজমের স্ব-হস্তে লিখিত কোন বই পাওয়া যায় না। তবে উনার সুযোগ্য ছাত্রগণ ইমামে আজমের ইলম বুকে ধারণ করেন। আর সুযোগ্য ছাত্রদের মাধ্যমেই হানাফী মাজহাবের ইলম-কালাম বিস্তার লাভ করে৷
ইমামে আজমের মৃত্যুর পর উনার ছাত্রদের উপর সেই ইলমি দায়িত্ব আরোপিত হয়। তন্মধ্যে ইমাম আবু ইউসুফ দারস-তাদরীস ও বিচার ব্যবস্থাপনার খেদমতে বেশী নিয়োজীত হন।

আর ইমাম মোহাম্মাদ ইবনে হাসান শায়বানী রাঃ দারস-তাদরীসের পাশাপাশি লিখালিখির জগতে মনযোগ নিবেশন করেন।
তিনি তার উস্তাদ ইমামে আজমের সকল মাসালা-মাসাইল সংরক্ষণে ১৭৯ হিজরীতে ” জাহিরুর রেওয়ায়াহ ” নামে গ্রন্থ রচনা করেন। যা মোট ছয়টা কিতাবের সন্নিবেশ ছিলো এবং ইমামে আজমের সকল মাসাইল ও উসূল সংকলিত ছিলো।
সেই বই ছয়টি –
১. মাবসুত
২. জিয়াদাত
৩. জামিউস সাগীর
৪. জামিউল কাবীর
৫. সিয়ারে কাবীর
৬. সিয়ারে সাগীর
এই মোট ছয়টি বই হলো হানাফী মাজহাবের আনুষ্ঠানিক যাত্রার বই, যা থেকে তৎকালীন আলিম-উলামা পড়াশোনা ও পড়ানো সহ বিচারিক কার্যক্রম ইত্যাদি শুরু করেন।

খেয়াল করেন, বইগুলা কিন্তু লিখে হয়েছে – ১৭৯ হিজরীতে !!
এবার আপনি বলেন তো, হানাফী মাজহাব কি ৪০০ হিজরীর পরে প্রতিষ্ঠিত?
আবু হানীফার মৃত্যুর ৪০০ বছর পরে প্রতিষ্ঠিত?
নাকি ইমামে আজমের মৃত্যুর মাত্র ২৯ বছর পর তথা ১৭৯ হিজরীতে আনুষ্ঠানিক প্রতিষ্ঠিত?

যাইহোক, হানাফী মাজহাব এর বিস্তার মূলত এই ছয়টি কিতাব থেকে বিস্তৃত। এই ছয়টি কিতাবকে আবার একত্র করেন হাকীম আশ-শাহীদ রাঃ ” কাফী ” নামক গ্রন্থে৷
অতঃপর, সেই কাফী নামক গ্রন্থের প্রায় ৩০ খন্ডের ব্যাখ্যা গ্রন্থ লিখেন ইমাম সারাখসী রাহিমাহুল্লাহ , যা থেকে যুগ যুগ ধরে উম্মাহের ইমামগণ ইলমের সুধা পান করে আসছে।
আমি অতি সংক্ষেপে হানাফী মাজহাবের মূল কিতাবাদী ও সন তুলে ধরছি –
১. জাহিরুর রিওয়ায়াহ ( লিখা হয়ঃ ১৭৯ হিজরীতে)
যা ছয়টি গ্রন্থের সমাহার৷ ইমাম আজমের ছাত্র ইমাম মুহাম্মাদ রাঃ লিখেছেন।
২. কাফী ( লিখা হয়ঃ ৩৩৪ হিজরীতে )
যা উপরের ছয়টি গ্রন্থের একত্র সংকলন। সংকলন করেছেন হাকিম শাহীদ রাঃ।
৩. মাবসুত ( লিখা হয়ঃ ৪৮৩)
এটা উপরের কাফী গ্রন্থের ব্যাখ্যা গ্রন্থ, যা মোট ৩০ খন্ডে রয়েছে। লিখেছেন ইমাম সারাখসী রাঃ।


এবার চিন্তা করুন,
হানাফী মাজহাব কখন এবং কিভাবে প্রতিষ্ঠিত হলো?
আর একদল লোক অনুসারীদের মাঝে কি প্রচার করে বিভ্রান্ত ছড়াচ্ছেন?
আর অন্ধ অনুসারীরা না পড়ে / না জেনে / না বুঝে কি তুলকালাম করছে ??
সূত্রঃ-
১. উইকপিডিয়া
২. আল-মাজহাবুল হানাফীয়ু
৩. মানাকিবু ইমামে আবি হানিফা


আব্দুল কারীম আল-মাদানী
শারীয়া বিভাগ, মদীনা বিশ্ববিদ্যালয় ।

Show More

Related Articles

One Comment

  1. Mojumder Jamil says:

    thanks for share. its great knowledge i gather from here

Leave a Reply, if you have comments about this post.

Back to top button
%d bloggers like this: